ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মহিলা আ.লীগের সম্মেলনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ‘একতরফা’ সম্মেলনকে ঘিরে দুই পক্ষের দ্বন্দ্ব এবার প্রকাশ্যে রূপ নিয়েছে।

রোববার সম্মেলনের নির্ধারিত দিনে সম্মেলন অনুষ্ঠানের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাতের অনুসারীরা।

দুপুর সোয়া ১২টার দিকে শহরের ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বর থেকে সম্মেলনে প্রতিবাদে তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাতের নেতৃত্বে এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্থানীয় প্রেসক্লাব চত্বরে এসে প্রতিবাদ সভা করে। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে জেলার বিভিন্ন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা অংশ নেন।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, দলের সভানেত্রী মিনারা আলমের ‘একতরফা’ সম্মেলন আমরা মানি না। সম্মেলন বাতিল করে সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে সুবিধাজনক সময়ে জাঁকজমকপূর্ণভাবে সম্মেলন অনুষ্ঠানের দাবি জানাচ্ছি।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীমা মুজিব, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী রুনাক সুলতানা পারভীন, উমা পাল, নিলুফা বেগম, শহর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুন্নাহার, সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারা বেগম, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম, বিজয়নগর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুন্নাহার টুনি প্রমুখ।

এদিকে পূর্বনির্ধারিত তারিখ অনুাযায়ী রোববার দুপুর ১২টায় জেলা পরিষদ মিলনায়তনে মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা বেগম। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলহাজ্ব সাফিয়া খাতুন। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেছেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মিনারা আলম।

উল্লেখ্য, মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন নিয়ে গত দু’সপ্তাহ ধরেই মুখোমুখি অবস্থানে ছিল জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বাধীন দুই গ্রুপ। হুট করে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার পরই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। সাধারণ সম্পাদককে পাশ কাটিয়ে সম্মেলনের সকল কার্যক্রম চালানো হয় বলেও অভিযোগ রয়েছে।

এ অবস্থায় জেলা ও বিভিন্ন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সম্মেলনের ঘোষিত তারিখ পরিবর্তন করার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে লিখিত আবেদন করেন।

Comments

comments