কুমিল্লায় স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকার স্বামীর

কুমিল্লার দেবিদ্বার পৌর এলাকার দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি এলাকায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন ঘাতক স্বামী পোলট্রি ব্যবসায়ী শাহ আলম।

সোমবার দুপুরে কুমিল্লার বিজ্ঞ ৪নং আমলি আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিপ্লব দেবনাথের আদালতে ঘাতক শাহ আলমকে হাজির করা হয়। স্ত্রীর কাছে বিভিন্নভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে বাধ্য হয়ে ঘুমন্ত স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার বিবরণ দিয়ে তিনি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেন। পরে তাকে বিকেলে জেল হাজেতে পাঠানো হয়।

দেবিদ্বার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, গত রোববার সকালে জেলার দেবিদ্বার পৌর এলাকার দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি এলাকা থেকে পোলট্রি ব্যবসায়ী শাহ আলমের বাসার অদূরে বাথরুমের কাছে থেকে তার স্ত্রী ও ৫ সন্তানের জননী হাজেরা বেগমের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ওসি মিজানুর রহমান জানান, মরদেহ উদ্ধারের সময় নিহতের স্বামী শাহ আলম পুলিশকে জানিয়ে ছিল ‘ঘটনার রাতে সে বাড়িতে ছিল না।’  কিন্তু তার এ বক্তব্য নিয়ে পুলিশের সন্দেহ আরও বাড়ে, জানাজা শেষে নিহতের ঘাতক স্বামীকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদের পর সে স্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করে।

ওসি আরও জানান, পুলিশের নিকট প্রাথমিক জবানবন্দী এবং আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে শাহ আলম জানায় ‘স্ত্রী কর্তৃক শারীরিকভাবে নির্যাতন, খারাপ আচরণ এবং পারিবারিক কলহের কারণেই ঘুমন্ত অবস্থায় স্ত্রীকে গলা টিপে হত্যা করার পর মরদেহ ঘরের বাইরে বাথরুমের পাশে নিয়ে রাখা হয়।

Comments

comments