কুমিল্লায় সংবর্ধনা পেলেন কনস্টেবল পারভেজ

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কুমিল্লার দাউদকান্দিতে দুর্ঘটনাকবলিত বাসযাত্রীদের উদ্ধারকারী আলোচিত সেই সাহসী হাইওয়ে পুলিশ সদস্য পারভেজ মিয়াকে পুরস্কার ও সংবর্ধনা প্রদান অব্যাহত রয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পারভেজ মিয়াকে সংবর্ধনা দিয়েছে নগরীর আইটি প্যালেস নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এ সময় তাকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ পুরস্কার প্রদান করা হয়।

“বীরের সাথে আইটি প্যালেস” শীর্ষক ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নগরীর অজিতগুহ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ হাসান ইমাম মজুমদার ফটিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কথাসাহিত্যিক অধ্যক্ষ এহতেশাম হায়দার চৌধুরী।

সাত্তার খান কমপ্লেক্সে আয়োজিত আইটি প্যালেসের স্বত্বাধিকারী নজরুল আমিন মোল্লার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা কালচারাল কমপ্লেক্সের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন সিদ্দিকী।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাত্তার খান কমপ্লেক্স দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মামনুর হাসান বকুল, স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লি. এর কুমিল্লা ব্রাঞ্চ ম্যানেজার বেলাল হোসেন মামুন, সেলস ম্যানেজার মো. মোস্তফা কামাল রাজু উরো কিং রেস্তোরাঁর মালিক মীর হোসেন ভূইয়া আলম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে পারভেজ মিয়াকে আইটি প্যালেস ও স্মার্ট টেকনোলজিসের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট এবং উরো কিং রেস্তোরাঁ, আইটি প্যালেস স্টাফবৃন্দ নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে আলোচিত পুলিশ কনস্টেবল পারভেজ তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, মানুষ-মানুষের জন্য, কারও জীবন রক্ষার চেয়ে বড় মহৎ কাজ ও দায়িত্ব আর কী হতে পারে। প্রত্যেক মানুষের মধ্যেই ভালো কাজ করার বাসনা থাকে। সময়, সুযোগ ও সাহসের কারণে অনেকে ব্যাটে-বলে মেলাতে পারেন না।

তিনি বলেন, যাত্রীদের জীবন বাঁচিয়ে আমি আমার দায়িত্ব পালন করেছি। শুধু কর্ম জীবন নয়, অবসর জীবনে গিয়েও আমি যেন মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারি এ জন্য দেশবাসীর দোয়া চাই।

উল্লেখ্য, গত ৭ জুলাই অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ঢাকা থেকে মতলবগামী মতলব এক্সপ্রেস নামের একটি বাস ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে জেলার দাউদকান্দির গৌরীপুর বাসস্ট্যান্ডের পাশে ডোবায় পড়ে যায়। দুর্ঘটনাটি উপস্থিত লোকজন যখন দাঁড়িয়ে ঘটনা প্রত্যক্ষ করছিলেন, তখন গৌরীপুরে দায়িত্বরত দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার কনস্টেবল পারভেজ মিয়া নায়কের মতো জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পচা ও গন্ধযুক্ত ময়লা-ডোবার পানিতে তাৎক্ষণিক লাফিয়ে পড়ে গাড়ির গ্লাস ভেঙে নারী, শিশু ও বৃদ্ধসহ অন্তত ২২ জন যাত্রীকে উদ্ধার করেন।

তার এই অসীম সাহসিকতার জন্য এরইমধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, হাইওয়ে ডিআইজি, হাইওয়ে পুলিশ সুপার, নিরাপদ সড়ক চাই, জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, পরিবহন মালিক সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন তাকে সম্মাননা, আর্থিক পুরস্কার, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছে। এছাড়াও আগামী পুলিশ সপ্তাহে তাকে পিপিএম পদক এবং পদোন্নতি দেয়ার বিষয়েও হাইওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

Comments

comments