কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমেটরিতে চুরি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিরাপত্তাহীনতা নিয়ে চলমান বিতর্কের মধ্যেই শিক্ষকের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার মধ্যে কোনো এক সময়ে শিক্ষকদের আবাসিক ডরমেটরির (১) ১০১ ও ৩০২ নম্বর ফ্ল্যাটে এ চুরির ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মামলা করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের আবাসিক ডরমেটরির (১) ১০১ ও ৩০২ নম্বর ফ্ল্যাটে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মো. খলিলুর রহমান এবং রসায়ন বিভাগের শিক্ষক মোহাম্মদ আতিকুর রহমান থাকেন।

এর মধ্যে মো. খলিলুর রহমান বিশ্বদ্যিালয়ের সহকারী প্রক্টরের দায়িত্ব পালন করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী নিরাপত্তা কর্মকর্তা মো. মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া জানান, গতকাল আনুমানিক বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার মধ্যে ডরমেটরির ১০১ ও ৩০২ নম্বর ফ্ল্যাটে চুরির ঘটনা ঘটে। ওই সময় ফ্ল্যাট দুইটিতে কেউ ছিলেন না। ফ্ল্যাটগুলোর তালা নষ্ট করে চোর ভিতরে প্রবেশ করে।

১০১ নম্বর ফ্ল্যাট থেকে নগদ ১ লাখ টাকা ও ১টি ল্যাপটপ এবং ৩০২ নম্বর ফ্ল্যাট থেকে নগদ ৪০ হাজার টাকা ও ১টি ল্যাপটপসহ কিছু মূল্যবান জিনিস চুরি হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এবং কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ চুরির সঙ্গে কে বা কারা জড়িত- তা এখনও জানা যায়নি। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার রাতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় মামলা দায়ের করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

নিরাপত্তা কর্মকর্তা মো. সাদেক হোসেন মজুমদার মামলাটি করেন। কোনো ব্যাক্তির নাম করা হয়নি ওই মামলায়। সদর দক্ষিণ মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম (পিপিএম) মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে এ ঘটনা সত্যিই দুঃখজনক। ইতোমধ্যে আমরা ডরমেটরিতে নিরাপত্তা বাড়িয়েছি।

পুলিশ প্রশাসনকেও দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলেছি। আশা করছি, অপরাধীরা শিগগির ধরা পড়বে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. মজিবুর রহমান মজুমদার বলেন, নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য ক্যাম্পাসে কিছু সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। ডরমেটরিতে সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে। নিরাপত্তা খাতে লোকবল বাড়ানোর পদক্ষেপও নেওয়া হচ্ছে।

Comments

comments