কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন আজ:আমন্ত্রণ না পাওয়ার অভিযোগ

আজ বৃহস্পতিবার (৪ ডিসেম্বর) কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। চান্দিনাস্থ জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামের সামনে ওই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

সম্মেলনক ঘিরে ভাল প্রস্তুতি নিতে পারেনি আয়োজকরা। গত মঙ্গলবার (২ ডিসেম্বর) সম্মেলনের পোস্টার ও দাওয়াতকার্ড ছাপানো হয়েছে। যা প্রকৃত পে ছাত্রলীগের সকল ইউনিটের নেতাকর্মীদের হাতে পৌঁছেনি। বুধবার রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিভিন্ন ইউনিটে খবর নিয়ে জানাগেছে অনেকেই জানেন না সম্মেলন স্থল কোথায়? অতিথি হিসেবে কারা উপস্থিত থাকছেন। কারা প্রার্থী হয়েছেন তাও জানেন না অনেক নেতাকর্মী।

ছাত্রলীগ-chatroligঅভিযোগ রয়েছে উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের অনেক নেতাকর্মীরাই আমন্ত্রণ পাননি। ২৮ নভেম্বর জেলা ছাত্রলীগের কার্যকরী কমিটির শেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ নেতারা ছাত্রলীগের সর্বশেষ কমিটির কর্মকান্ডে তীব্র ােভ প্রকাশ করেন।

ওই কমিটি গঠন হওয়ার পর তারা কোন বড় সভা-সমাবেশও করতে পারেনি বলে অভিযোগ ওঠে। সভাপতি সাইফুল ইসলাম সোহাগ এর স্বেচ্ছাচারিতাসহ সিনিয়র নেতাদের মধ্যে পারস্পরিক আস্থা শঙ্কট থাকায় ওই অবস্থার সৃষ্টি হয় বলেও অভিযোগ ওঠে। শুক্রবার সভা করে মাত্র সাত দিনের মাথায় ৪ ডিসেম্বর সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। এতে আরও সমস্যায় পড়েন আয়োজকরা।

অনেকেই সম্মেলন পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানান। তবুও অজ্ঞাত কারণে তরিঘরি করে অল্প সময়ে সম্মেলন আয়োজন করা হয়। সরেজমিনে বুধবার সম্মেলন স্থলে গিয়ে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক জেলা ছাত্রলীগ নেতা নজরুল ইসলাম কাজল কে পাওয়া যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানাযায় তিনি বুধবার রাত ৮টা পর্যন্ত সম্মেলন স্থলেই আসেননি। কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ রাজিব আহম্মেদ।

অনেকটা আপে নিয়ে বলেন- ‘শুধু কমিটি নয়, অভিভাবক চাই। দীর্ঘদিন ধরে উত্তর জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটগুলো চলছে অভিভাবকহীন। আগামীতে যারা নেতৃত্বে আসবেন তারা যেন দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে রাজনীতি করেন, সুখে দুঃখে পাশে থাকেন এটাই চাওয়া।

দলের মধ্যে আলাদা বলয় তৈরি করে রাজনীতির নজির আর দেখতে চাই না।’ এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন অনেক ছাত্রলীগ নেতা। কোন গ্র“পিং বা বলয় তৈরী নয়, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে ছাত্রলীগে কাজ করবেন এমন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ নেতৃত্ব চান তারা।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানাযায়, সভাপতি পদে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাবিবুর রহমান, মুরাদনগরের ছাত্রলীগ নেতা আল আমীন সরকার, মো. রুহুল আমীন, হোমনার মতিউর রহমান, দাউদকান্দির হালিম মিয়াজী, সাধারণ সম্পাদক পদে মুরাদনগরের আসাদুজ্জামান সোহাগ, দেবীদ্বারের অনিক মিয়া ও পারভেছ হোসেন, হোমনার ফরুক হোসেন, তিতাসের আলীম সোহাগ ও ফরহাদ মিয়া আলোচনায় রয়েছেন।

তবে মনোনয়ন সংগ্রহ বা প্রার্থীতা ঘোষণার বিষয়গুলো অনেকটাই অস্পষ্ট। এদিকে চান্দিনা থেকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে কোন প্রার্থী নেই। নাম প্রকাশ না করার শর্তে চান্দিনা উপজেলা ছাত্রলীগের একাধিক নেতাকর্মী এর কারণ হিসেবে সাংগঠনিক দুর্বলতা কেই দায়ী করেছেন।

দীর্ঘ আড়াই বছরেও ছাত্রলীগের এই ইউনিটের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়নি। এটিও এর অন্যতম কারণ। অপরদিকে কুমিল্লা উত্তর জেলার সাংগঠনিক কার্যক্রম এবং রাজনৈতিক দলগুলোর জেলা কার্যালয় চান্দিনায় হলেও এখান থেকে কোন প্রার্থী না থাকায় বিষয়টি নিয়ে নানা গুঞ্জন উঠেছে।

আওয়ামীলীগসহ অন্যান্য অনেক দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোতে চান্দিনার নেতাকর্মীরা গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকলেও ছাত্রলীগই হতে যাচ্ছে এর ব্যতিক্রম। ফলে কার্যক্রম দুর্বল হওয়ারই সম্ভবনা থাকে। সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব ও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন শিমুল জানান- ‘মঙ্গলবার (২ ডিসেম্বর) ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় তিন জন নেতা সম্মেলন সফল করতে জেলা ছাত্রলীগ নেতাদের সাথে বৈঠক করেছেন।

আমরা সাধ্যানুযায়ী চেষ্টা করছি। মনোনয়ন পত্র বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া সিভি জমা দিয়েও যে কোন ছাত্রলীগ নেতা প্রার্থী হতে পারবেন। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক মুজিব এম.পি।’

Comments

comments